ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৪ ১:৪৪ পূর্বাহ্ণ

দুই বছর আগের মামলায় রিজভীর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র গ্রহণ

বিস্ফোরণের এক মামলায় বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভীকে আসামি করে দেওয়া অভিযোগপত্র নিয়েছে আদালত। পুলিশের দেওয়া এই অভিযোগপত্র গতকাল বৃহস্পতিবার গ্রহণ করেন ঢাকার মহানগর হাকিম তরিকুল ইসলাম। তিনি রিজভীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশও দেন। এই আদেশ তামিলের প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ২ ফেব্রুয়ারি দিন ঠিক করে দেন তিনি। বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রিজভী এখন কারাগারে রয়েছেন। গত ৭ ডিসেম্বর নয়া পল্টনের বিএনপি কার্যালয়ে পুলিশের অভিযানে কয়েকশ নেতা–কর্মীর সঙ্গে তিনিও গ্রেপ্তার হন।

পল্লবী থানার মামলার বিবরণ অনুযায়ী, ২০২০ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি পল্লবী থানা এলাকায় রিজভীসহ বিএনপির ৬৯ নেতাকর্মী পুলিশকে হত্যার উদ্দেশ্যে তিন–চারটি হাতবোমা বা ককটেল বিস্ফোরণ করে পালিয়ে যান। সেই ঘটনায় পল্লবী থানার এসআই রবিউল ইসলাম বাদী হয়ে মামলাটি করেন। এই বছরের ২৯ জুন পল্লবী থানার এসআই নূরে আলম সিদ্দিকী রিজভীসহ ৬৯ জনকে আসামি করে অভিযোগপত্র জমা দেন। ছয় মাস আগে দেওয়া এই অভিযোগপত্রে রিজভীসহ ১৩ জনকে পলাতক দেখিয়ে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেছিলেন তদন্ত কর্মকর্তা। গতকাল আসামিদের ছয়জন জামিন নেন। রিজভীসহ বাকি সাতজনকে গ্রেপ্তারে পরোয়ানা জারির আদেশ দেন বিচারক।

নাশকতার অভিযোগে পল্টন ও বাড্ডা থানার পৃথক তিন মামলায় একই দিন রিজভীকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে বলেও জানান তার প্রধান আইনজীবী, বিএনপি নেতা মাসুদ আহমেদ তালুকদার।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ১২ সেপ্টেম্বর কাকরাইলের বিজয়নগরে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও রুহুল কবির রিজভীর নেতৃত্বে ২০০ থেকে ২৫০ জন লাঠি সোটা নিয়ে গাড়ি ভাংচুর করে। এ ঘটনায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ি চালক আয়নাল বাদি হয়ে পল্টন থানায় মামলা করেন। এছাড়া ২০১৩ সালে পার্টি অফিসের সামনে নাশকতার অভিযোগে পল্টন থানায় এবং ২০১৫ সালের বাড্ডা থানায় দায়ের করা মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এই তিন মামলাই বিচারাধীন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn