এপ্রিল ১৭, ২০২৪ ১১:০১ পূর্বাহ্ণ

১৫০০ টাকায় রোহিঙ্গাদের জন্ম নিবন্ধন সনদ

বহুল আলোচিত জন্মনিবন্ধন সনদ জালিয়াতির মামলায় নির্বাচন কমিশনের (ইসি) থানা কার্যালয়ের জয়নাল আবেদীন (৩৮) নামে বরখাস্ত এক অফিস সহায়ককে (পিয়ন) গ্রেফতার করা হয়েছে।

সোমবার (৩০ জানুয়ারি) রাতে নগরীর কোতোয়ালী এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি)-এর কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট।

জয়নাল আবেদীন বাঁশখালী উপজেলার বাসিন্দা। তিনি নগরীর ডবলমুরিং থানা নির্বাচন কার্যালয়ের অফিস সহায়ক পদে কর্মরত ছিলেন। ২০১৯ সালে গ্রেফতারের পর তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়।

সিএমপি’র কাউন্টার টেরোরিজম বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) আসিফ মহিউদ্দীন চট্টলার কণ্ঠকে  বলেন, “গত ২৪ জানুয়ারি চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) ১৩ নম্বর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের জন্মনিবন্ধন সহকারী আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে ভুয়া জন্মনিবন্ধনের ঘটনায় খুলশী থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় গ্রেফতার চারজনের তথ্যের ভিত্তিতে জয়নালকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জয়নাল জালিয়াতির মাধ্যমে ৫০টির বেশি জন্মনিবন্ধন সনদ সৃজন করেছেন।”

তিনি বলেন, “ভুয়া জন্মনিবন্ধন সনদের একাধিক চক্র দেশব্যাপী অবৈধ কার্যক্রমে জড়িত আছে। প্রতিটি ভুয়া জন্মনিবন্ধন সনদ তৈরি করতে গড়ে জয়নাল ১ হাজার ৫০০ টাকা থেকে ১ হাজার ৮০০ টাকা নিতেন। রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশের জন্মনিবন্ধন সনদসহ জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সরবরাহকারী চক্রের জয়নাল সক্রিয় সদস্য।”

জয়নালকে আরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে। আগামীকাল বুধবার (১ ফেব্রুয়ারি) শুনানি হতে পারে।

এদিকে, পুলিশ সূত্র জানায়, জয়নালের বিরুদ্ধে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) জালিয়াতির দু’টি এবং দুদকের দু’টিসহ চারটি মামলা রয়েছে। দুদকের মামলাগুলো বিচারাধীন, বাকি দু’টি তদন্তাধীন। এসব মামলায় তিনি জামিনে ছিলেন।

গত ২৬ জানুয়ারি বিকেলে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের পক্ষ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে চসিক জন্মনিবন্ধন সনদ জালিয়াতি চক্রের দুই সদস্যকে গ্রেফতারের তথ্য জানানো হয়েছিল।

এর আগে গত ২৪ জানুয়ারি এক প্রেস ব্রিফিংয়ে চসিক-এর জন্মনিবন্ধন সনদ জালিয়াতি চক্রের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করে বলে জানায় সিএমপি’র কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn