মে ২০, ২০২৪ ২:১০ পূর্বাহ্ণ

সাবেক পরিদর্শক শাহ আলমের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

ইমরান নাজির

চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের সাবেক পুলিশ পরিদর্শক মো. শাহ আলমের (অবসরপ্রাপ্ত) বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুদক। তার বিরুদ্ধে ১ কোটি ৭ লাখ ৪১ হাজার ৭২১ টাকা জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করে ভোগ দখলে রাখার অভিযোগ আনা হয়েছে। গতকাল দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম–১ এ মামলাটি দায়ের করেন একই কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. এমরান হোসেন। মো. শাহ আলম সর্বশেষ চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের ডিআইও–১ এ কর্মরত ছিলেন। নগরীর ডবলমুরিং থানাধীন আগ্রাবাদ সিডিএ এলাকায় বর্তমানে তিনি বসবাস করছেন। দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম –১ এর উপপরিচালক

জানতে চাইলে নাজমুচ্ছায়াদাত চট্রলার কণ্ঠকে  বলেন, দুদক প্রধান কার্যালয়ের সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে সাবেক পুলিশ পরিদর্শক মো. শাহ আলমের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ২০২২ সালের ২৩ মে দুদকে দাখিল করা সম্পদ বিবরণীতে সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মো. শাহ আলম নিজ নামে ৭১ লাখ ৫ হাজার ৬৫০ টাকার স্থাবর সম্পদ, ১ কোটি ২৮ লাখ ৫৭ হাজার ৩০৪ টাকার অস্থাবর সম্পদসহ মোট ১ কোটি ৯৯ লাখ ৬২ হাজার ৯৫৪ টাকা মূল্যের সম্পদ অর্জন এবং ১৬ লাখ ৯৭ হাজার টাকা ঋণ থাকার ঘোষণা প্রদান করেন। অনুসন্ধান করলে দেখা যায়, মো. শাহ আলম ২০১৬ সালে তার স্ত্রীর বড় ভাইয়ের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা এবং ২০২০ সালে তার আপন ছোট ভাই মো. আনোয়ার হোসেনের কাছ থেকে ৩ লাখ টাকা ঋণ গ্রহণ করেন। যা তিনি পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে পরিশোধ করেছেন। অপরদিকে, ২০১৮ সালের ২২ মার্চ কুমিল্লার মুরাদনগরে ৩০ শতক ভূমি মো. জাহাঙ্গীর আলমের কাছে বন্ধক দিয়ে ৬ লাখ টাকা ঋণ গ্রহণ করেন। একইভাবে ২০১৯ সালের ৩০ মার্চ একই এলাকায় ১২ শতক এবং পৃথক ১৬ শতক নাল ভূমি একই ব্যক্তির কাছে বন্ধক দিয়ে ২ লাখ ৯৭ হাজার টাকা ঋণ গ্রহণ করেন। ফলে সম্পদ বিবরণীতে নিজ নামে ১৬ লাখ ৯৭ হাজার টাকা ঋণ থাকার ঘোষণা প্রদান করলেও রেকর্ডপত্রে তার নামে শুধুমাত্র জমি বন্ধক প্রদান বাবদ ৮ লাখ ৯৭ হাজার টাকা ঋণের তথ্য পাওয়া যায়। ফলে দায় বা ঋণ বাদে তার নামে ১ কোটি ৯০ লাখ ৪৮ হাজার ৭৭৫ টাকার সম্পদ অর্জনের তথ্য পাওয়া যায়। একইভাবে, আয়কর নথি পর্যালোচনায় ২০১৬–১৭ থেকে ২০২২–২৩ করবর্ষ পর্যন্ত তার পারিবারিক ও অন্যান্য খরচ বাবদ ১ কোটি ১১ লাখ ৭৮ হাজার ২৯০ টাকা ব্যয়ের তথ্য পাওয়া যায়। অর্থাৎ পারিবারিক ও অন্যান্য ব্যয়সহ মো. শাহ আলমের মোট অর্জিত সম্পদের পরিমাণ ৩ কোটি ২ লাখ ২৭ হাজার ৬৫ টাকা। দুদক কর্মকর্তা নাজমুচ্ছায়াদাত বলেন, সার্বিকভাবে যাচাইকালে দেখা যায়, সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মো. শাহ আলম দুদকে দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণীতে মোট ১ কোটি ৭ লাখ ৪১ হাজার ৭২১ টাকা কম প্রদর্শন করেছেন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn