জুলাই ১৯, ২০২৪ ৩:২১ পূর্বাহ্ণ

তফসিল ঘোষণার পরে মিছিল বের করলো আওয়ামী লীগ

ইমরান নাজির।

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে বিভিন্ন জায়গায় আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠন।

নগর আওয়ামী লীগ
তফসিল ঘোষণা করায় স্বাধীন নির্বাচন কমিশনকে তাৎক্ষণিক অভিনন্দন জানিয়ে মিছিল ও নির্বাচনী শোভাযাত্রা করেছে নগর আওয়ামী লীগ।

বুধবার (১৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় নগরীর দারুল ফজল মার্কেট চত্বর থেকে একটি আনন্দ মিছিল ও নির্বাচনী শোভাযাত্রা নিউমার্কেট-জিপিও-কোতোয়ালী মোড় হয়ে জেলা পরিষদ সুপার মার্কেট চত্বরে এসে শেষ হয়।

মিছিলের সমাপনী বক্তব্যে নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহতাব উদ্দীন চৌধুরী বলেন, “সব চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্রের বেড়াজাল ছিন্ন করে নির্বাচন কমিশন দ্বাদশ জাতীয় সংসদের তফসিল ঘোষণা করায় জাতি আনন্দিত ও স্বস্তি বোধ করছে। বিএনপি-জামায়াতের নির্বাচন বানচালের নানাধরনের নাটকীয়তার বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনের ইতিবাচক অবস্থান জাতিকে প্রাণিত করেছে। আমরা চাই এই নির্বাচনের মধ্য দিয়ে যাদের জনগণ চাইবে তারাই ক্ষমতায় থাকবে।”

নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, “সব আশঙ্কা ও উদ্বেগ উড়িয়ে দিয়ে সংবিধান সম্মতভাবে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার মধ্যদিয়ে নির্বাচন কমিশনের দৃঢ় প্রত্যয়ে আশা ভরসার বাতি প্রজ্জ্বলিত হয়েছে। সব অশুভ শক্তির ভ্রুকুটি ও বিদেশি মুরুব্বিদের প্রেসক্রিপশন ছাড়াই যে নির্বাচনটি অনুষ্ঠিত হবে তা সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জনগণকে সঙ্গে নিয়ে রাজপথে থাকবে। যেকোনো মূল্যে নির্বাচন বানচালের অগণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া নাশকতা ও অরাজকতাকে প্রতিহত করতে হাতে লাঠি বুকে বল নিয়ে নেত্রী শেখ হাসিনার পাশে ছিলাম, আছি ও থাকব। নগরীর তিনটি এবং আরো তিনটি আসনসহ মোট ছয়টি আসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যাকেই নৌকা প্রতীক দেবেন তার বিজয় নিশ্চিত করার জন্য ঐক্যবদ্ধ থেকে ভোটারদের ঘরে ঘরে গিয়ে তাদের মন জয় করতে হবে।”

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি নঈম উদ্দীন চৌধুরী, অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, খোরশেদ আলম সুজন, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ এমপি, উপদেষ্টা সফর আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিক আদনান, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, দপ্তর সম্পাদক সৈয়দ হাসান মাহমুদ শমসের, বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক মসিউর রহমান চৌধুরী, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক মো.হোসেনসহ থানা, ওয়ার্ড, ইউনিট আওয়ামী লীগ, সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠনের অসংখ্য নেতাকর্মী আনন্দ মিছিল ও নির্বাচনী শোভাযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন।

রাঙামাটি
দৈনিক আজাদী’র রাঙামাটি প্রতিনিধি জানান, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে রাঙামাটিতে আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জেলা আওয়ামী লীগ।

আজ বুধবার রাত ৮টায় জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে শহরের বনরুপা, রিজার্ভ বাজার, তবলছড়ি, কলেজ গেইট, ভেদাভেদী এলাকাসহ বিভিন্ন পয়েন্টে এ আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জেলা ও পৌর আওয়ামী লীগ।

এসময় রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আশিষ কুমার চাকমা নব, সদস্য আবু তৈয়ব, সদস্য ঝিনুক ত্রিপুরা, সাবেক ছাত্রনেতা ও ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিল জামাল উদ্দিন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল জব্বার সুজন, সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চাকমাসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় বক্তারা নির্বাচনের আগ পর্যন্ত যেকোনো পরিস্থিতিতে মাঠে থেকে বিএনপি-জামায়াতের নাশকতা প্রতিরোধ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

রাঙ্গুনিয়া
রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি জানান, চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার আওয়ামী লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আজ বুধবার (১৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় তফসিল ঘোষণার পর পরই রাঙ্গুনিয়ায় এই মিছিল বের করে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় থেকে মিছিলটি বের হয়ে কাপ্তাই সড়কের কয়েক কিলোমিটার এলাকা প্রদক্ষিণ করে।

মিছিলে অংশ নিয়েছে জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। পরে উপজেলা সদরের ইছাখালী এলাকায় এসে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার সামশুল আলম তালুকদারের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বজন কুমার তালুকদার, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মো. শাহজাহান সিকদার প্রমুখ।

নির্বাচনে নৌকার বিজয় নিশ্চিতে সমাবেশ থেকে দলীয় নেতৃবৃন্দকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানানো হয়। এছাড়া হরতাল-অবরোধের নামে বিরোধী রাজনীতিকরা কোনো নাশকতার চেষ্টা চালালে তা কঠোরভাবে মোকাবেলা করা হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন নেতৃবৃন্দ।

এছাড়া রাঙ্গুনিয়া থেকে ড. হাছান মাহমুদকে বিজয়ী করার অঙ্গীকারও ব্যক্ত করেন নেতৃবৃন্দ।

চকরিয়া
চকরিয়া প্রতিনিধি জানান, প্রধান নির্বাচন কমিশনার আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করায় স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল করেছে কক্সবাজারের চকরিয়া, পেকুয়া ও মাতামুহুরী উপজেলা আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

বর্তমানে ঢাকায় অবস্থান করায় কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাফর আলমের নির্দেশে আজ বুধবার সন্ধ্যায় ঘোষিত তফসিলকে স্বাগত জানিয়ে এই আনন্দ মিছিল বের করে দলের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা।

চকরিয়া উপজেলা, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী যৌথভাবে ঘোষিত তফসিলকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল বের করে চকরিয়া পৌরশহরের চিরিঙ্গায়। পৌরশহরের থানা রাস্তার মাথার সিস্টেম কমপ্লেক্সের সামনে থেকে বের করা এই আনন্দ মিছিলটি চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কসহ পৌরশহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

এতে উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু মুছা, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলমগীর, উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক তানভীর আহমদ সিদ্দিকী তুহিনসহ দলের উপজেলা, পৌরসভা এবং স্ব স্ব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ সর্বস্তরের নেতাকর্মী ও সমর্থক।

আরো উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শহীদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক কাউছার উদ্দিন কছির, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি বশির আলম, সাধারণ সম্পাদক ইমসাইল হোসেন ধলু, চকরিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুল আজিজ আজাদ, সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন প্রমুখ।

এই আনন্দ মিছিলে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিকলীগ, কৃষকলীগসহ দলের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের হাজারো নেতাকর্মী অংশ নেন।

এদিকে, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা তফসিলকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল বের করে। এতে উপস্থিত ছিলেন পেকুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইফুদ্দিন খালেদ ও সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেমসহ দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা।

অপরদিকে, মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বের করা হয় আনন্দ মিছিল। তফসিলকে স্বাগত জানিয়ে বের করা মিছিলে নেতৃত্ব দেন মাতামুহুরী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও চকরিয়া উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মকছুদুল হক চুট্টুসহ দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ৩০ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই ১ থেকে ৪ ডিসেম্বর, রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কমিশনে আপিল দায়ের ও নিষ্পত্তি ৬ থেকে ১৫ ডিসেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ১৭ ডিসেম্বর। রিটার্নিং কর্মকর্তারা প্রতীক বরাদ্দ করবেন ১৮ ডিসেম্বর। নির্বাচনী প্রচার চলবে ৫ জানুয়ারি সকাল ৮টা পর্যন্ত। আর ভোটগ্রহণ হবে ৭ জানুয়ারি রবিবার।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn