ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৪ ১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ

বঙ্গবন্ধুর হত্যা এবং হত্যার পরিকল্পনাকারীরা দেশদ্রোহীঃ আ জ ম নাছির।

 

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের হত্যাকারী এবং পরিকল্পনাকারীরা দেশদ্রোহী। এই নরপশুর দল শুধুমাত্র বঙ্গবন্ধুকে খুন করার পরিকল্পনা করেনি, তারা জাতির জনকের পরিবারকে সমূলে বিনাশ করার ষড়যন্ত্রে এই পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড চালিয়েছিল।

শনিবার (২০ আগস্ট) সন্ধ্যায় নগরের জেলা শিল্পকলা একাডেমীর আর্ট গ্যালারি মিলনায়তনে ‘বেদনার সুরে বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ’ ও শিশু-কিশোর চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে চট্টগ্রাম মঞ্চ সংগীত শিল্পী সংস্থা (সিএমএসএস)।

আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সেই বাড়িটির সিঁড়িতে বঙ্গবন্ধুকে দেখামাত্র ব্রাশ ফায়ার করে হত্যাকারীরা। তারপর তার হতভাগ্য লাশটি মাড়িয়ে তারা বাড়ির প্রতিটি রুম তল্লাশি চালিয়ে একে একে শেখ কামাল, শেখ জামাল, সুলতানা কামাল, আবদুর রব সেরনিয়াবতসহ অপরাপর ১৭ জন পরিবারের সদস্যকে হত্যা করে। তারা অবোধ ১১ বছরের শিশু শেখ রাসেলকে পর্যন্ত বেয়নেট দিয়ে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে হত্যা করে। পৃথিবীতে অনেক রাজনৈতিক নেতৃত্বকে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু একজন নেতাকে সপরিবারে হত্যা করার এমন ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র আর দ্বিতীয়টি ঘটেনি।
তিনি বলেন, জাতির জনকের অপরাধ তিনি বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রের জন্মদাতা। তার অপরাধ তিনি একটি রাষ্ট্রের স্বাধীনতার জন্য দেশের সাড়ে সাত কোটি মানুষকে এক মন্ত্রে দীক্ষিত করতে পেরেছিলেন। তার অপরাধ তিনি পাকিস্তানিদের শত প্রলোভনেও কখনো জাতির সঙ্গে বেঈমানি এবং আপন রক্তের সঙ্গে মোনাফেকি করতে পারেননি।
চট্টগ্রাম মঞ্চ সংগীত শিল্পী সংস্থার সভাপতি আলাউদ্দিন তাহেরের সভাপতিত্ব ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট কামরুল আযম চৌধুরী টিপুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, চট্টগ্রাম জেলা পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জিয়াউদ্দিন, কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রির পরিচালক অহীদ সিরাজ চৌধুরী স্বপন, মহানগর যুবলীগের সংগঠক দিদারুল আলম দিদার, ফটিকছড়ি আবদুল্লাহপুরের চেয়ারম্যান ওহিদুল আলম।

আরও বক্তব্য রাখেন নারীনেত্রী অ্যাডভোকেট কামরুন্নাহার, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দ সৈনিক সুজিত রায়, কায়সারুল আলম, সাইফুদ্দিন মাহমুদ খান, যুবলীগ নেতা সুমন দেবনাথ, আশরাফুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট টিপু শীল জয়দেব ও ওমর ফারুক সুমন।

 

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn