ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৪ ১:১৩ অপরাহ্ণ

রাউজানে অপ্রতিদ্বন্দ্বী ফজলে করিম

জাহাঙ্গীর আলম, রাউজান।

চট্টগ্রাম-৬ (রাউজান) আসনে চারবারের এমপি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের প্রার্থী তিনি। তাঁর সঙ্গে ট্রাক প্রতীকে স্বতন্ত্র হয়ে লড়ছেন অ্যাডভোকেট শফিউল আজম। প্রার্থী আছে জাতীয় পার্টি, তৃণমূল বিএনপি, ইসলামিক ফ্রন্টেরও। তবে ভোটারদের সব হিসাব-নিকাশ ফজলে করিম চৌধুরীকে ঘিরেই। তাঁদের মতে, রাউজানে এমপি পদে এখনো তিনি ‘অপ্রতিদ্বন্দ্বী’।

ভোটাররা বলছেন, নৌকার প্রার্থী ফজলে করিম চৌধুরীর উন্নয়ন কর্মকাণ্ড, রাজনৈতিক শালীনতা ভোটের মাঠে তাঁকে এগিয়ে রেখেছে। ‘মানবিক ছেলে’ ফারাজ করিম চৌধুরীর বদৌলতে তরুণ ভোটাররাও ফজলে করিমের পক্ষে। স্বতন্ত্রসহ আরও চার প্রার্থীর সঙ্গে তাঁর ভোটের ব্যবধানে থাকবে বিস্তর ফারাক। যদিও ভোটারদের কাছে সুযোগ চান অন্য প্রার্থীরাও।

সরেজমিন দেখা যায়, রাউজানে ভোটের মাঠে প্রচার-প্রচারণায় এগিয়ে আছেন নৌকার প্রার্থী ফজলে করিম চৌধুরী। তিনি নিজে এবং তার বড়ছেলে ফারাজ করিম চৌধুরী নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রতিদিন দুটি তিনটি পথসভা করছেন তারা। গেল ২০ ডিসেম্বর বাবা-মায়ের কবর জিয়ারত করে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন ফজলে করিম। গত শনিবার রাউজান উপজেলা ডাবুয়া ও হলদিয়া ইউনিয়নে একাধিক পথসভা করেন। গণসংযোগে ও পথসভায় সাধারণ মানুষের কাছে সরকারের উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে নৌকা প্রতীকে ভোট ও সমর্থন কামনা করছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘রাউজানে একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হবে বলে আশা করি। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকা মার্কায় ভোট দিবে জনগণ।’

রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী আবদুল ওহাব বলেন, ‘রাউজানে সুপরিকল্পিত উন্নয়নের জন্য ভোটারদের আস্থার প্রতীক ফজলে করিম চৌধুরী। ১৯৯৬ সাল থেকে এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী রাউজানে ব্যাপক উন্নয়নকাজ করে সাধারণ মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন। এবারও বিপুল ভোটে নির্বাচিত হবেন তিনি।’

অন্যদিকে খুব একটা অবস্থান গড়তে না পারলেও প্রচার-প্রচারণায় সরগরম রয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট শফিউল আজম। গণসংযোগ, পথসভায় সমর্থকদের নিয়ে নিয়মিত অংশ নিচ্ছেন তিনি। ভোটারদের দ্বারে দ্বারেও যাচ্ছেন।  জানতে চাইলে অ্যাডভোকেট শফিউর আজম বলেন, ‘আমি নতুন প্রার্থী। জনগণ আমাকে একবার সুযোগ দিলে আমি জয়লাভ করতে পারব। তবে নির্বাচনের ফলাফল যাই হোক আমি মেনে নিবো।’

এ ছাড়া ভোটের মাঠে আছেন জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী (লাঙল) সফিউল আলম চৌধুরী, তৃণমূল বিএনপির (সোনালী আঁশ) মো. ইয়াহিয়া জিয়া চৌধুরী ও ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ মনোনীত প্রার্থী (চেয়ার) শ.ম জাফর উল্লাহ।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn